ইউপি সদস্যকে মারধোরের ঘটনায় জেলা পরিষদের সাবেক সদস্য কারাগারে


প্রকাশের সময় : ডিসেম্বর ৬, ২০২২, ১০:০৭ অপরাহ্ন / ৩৪১
ইউপি সদস্যকে মারধোরের ঘটনায় জেলা পরিষদের সাবেক সদস্য কারাগারে

 

তপন দাস

নীলফামারী প্রতিনিধি

নীলফামারীর ডোমারে জেলা পরিষদ নির্বাচনে সদস্য পদে হেরে গিয়ে আতাউর রহমান সাজু নামে এক পরাজিত প্রার্থী ভোটের টাকা ফেরত চেয়ে জোড়াবাড়ী ইউপি সদস্য আব্দুল খালেককে গ্রাম আদালতের ভিতর ঢুকে মারধর করে। এ ঘটনায় জেলা পরিষদের সাবেক সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে ডোমার থানার পুলিশ।

মঙ্গলবার (৬ ডিসেম্বর) বিকেলে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়। এর আগে সোমবার (৫ ডিসেম্বর) রাত দেড়টার দিকে নিজ বাড়ি থেকে তাকে আটক করে ডোমার থানা পুলিশ।

সূত্রে জানা যায়, ‘জেলা পরিষদ নির্বাচনে আতাউর রহমান সাজু সদস্য পদে নির্বাচনে দাঁড়ালে তার পক্ষে জোড়াবাড়ি ইউনিয়নের সদস্যদের নির্বাচনী প্রচারণা চালাতে বলেন তিনি। ইউপি সদস্যরা তার পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণা না চালালে সাজু ইউনিয়নের সকল সদস্যদের প্রতি ক্ষিপ্ত হয়ে যায়। এ ঘটনার জেরে গত সোমবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে সদস্য আব্দুল খালেক ইউপি ভবনে প্রবেশ করলে সাজু ও তার লোকজন ইউপি ভবনে গিয়ে তাকে মারধর করে। এ সময় গুরুতর আহত অবস্থায় ইউপি সদস্যরা আব্দুল খালেককে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করায়।’

আতাউর রহমান সাজু উপজেলার জোড়াবাড়ী ইউনিয়নের মাঝাপাড়া এলাকার আজিজুল ইসলামের ছেলে। তিনি নীলফামারী জেলা পরিষদের সাবেক সদস্য ছিলেন।

গত ১৭ অক্টোবর নীলফামারী জেলা পরিষদ নির্বাচনে সদস্য পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে সাজু ৩৪ ভোট পরাজিত হন। তিনি পরাজিত হয়ে ইউপি সদস্য আব্দুল খালেককে গ্রাম আদালত চলাকালীন সময়ে মারধর করেন।

এ ঘটনায় সোমবার রাতেই ইউপি সদস্য আব্দুল খালেক বাদী হয়ে সাজুকে প্রধান আসামি করে ৪ জনের নামে ডোমার থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। পরে রাত দেড়টার দিকে পুলিশ অভিযুক্ত সাজুকে গ্রেপ্তার করে।

ডোমার থানার অফিসার ইনচার্জ মো. মাহমুদ উন নবী জানান, ‘ইউপি সদস্য আব্দুল খালেকের অভিযোগের ভিত্তিতে ১ নম্বর আসামি আতাউর রহমান সাজুকে গ্রেপ্তার করা হয়। আজ মঙ্গলবার দুপুরে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছেন। এ ঘটনায় আরও বাকি আসামিকে ধরতে অভিযান অব্যাহত আছে।’