পরকিয়ার কারনে জীবন দিলেন ব্যবসায়ী সহিদুল?


প্রকাশের সময় : নভেম্বর ৪, ২০২২, ১০:৫৩ অপরাহ্ন / ৫২১
পরকিয়ার কারনে জীবন দিলেন ব্যবসায়ী সহিদুল?

তপন দাস

নীলফামারী প্রতিনিধি

নীলফামারীতে পরক্রিয়া প্রেমের বলি হলেন সদর উপজেলার টুপামারী ইউনিয়নের জুম্মাপাড়ার মোহাম্মদ সহিদুল ইসলাম (৫০) বৃহস্পতিবার রাত আনুমানিক ৪:৩০ মিনিটে কিসামত দোগাছির হাফেজ পাড়ার ঘটনাটি ঘটে।
নিহত সহিদুল ইসলাম (৫০) একই ইউনিয়নের জুম্মা পাড়া এলাকার জফির উদ্দিনের ছেলে। ঘটনাস্থলে গিয়ে কয়েকজনের সাথে কথা হলে তারা জানান ছাগল ব্যবসায়ী সহিদুল ও ইজিবাইক চালক রফিকুল ইসলামের (৫৪) বন্ধুত্বের কারনে সহিদুল প্রায়ই রফিকুলের বাড়িতে যেত , আর সেই সুবাধে সহিদুলের সাথে পরক্রিয়া প্রেমে জড়িয়ে পড়েন ইজিবাইক চালক রফিকুলের স্ত্রী লাইলী বেগম (৪৫) । পরক্রিয়া প্রেমের বিষয়টি রফিকুল ইসলাম টের পেলে সে বাহিরে যাওয়ার কথা বলে বাড়ির পাশে লুকিয়ে থাকে এবং রাত সাড়ে ৮ টার দিকে সহিদুল ইসলাম লাইলীর সাথে দেখা করতে আসলে রফিকুল পিছন দিক থেকে সহিদুলের মাথায় রড দিয়ে আঘাত করলে অচেতন হয়ে পড়ে সহিদুল,  তাকে মৃত ভেবে একটি ধান খেতে তাকে ফেলে রাখেন রফিকুল ও লাইলী বেগম। পরে সহিদুলের জ্ঞান ফিরলে সে শব্দ করতে থাকে পরে পথচারী রা তা টের পেলে তাকে রক্তাক্ত অবস্হায় উদ্ধার করে নীলফামারী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করান সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে রাতেই তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে  নেয়ার পথে  মৃত্যু বরণ করেন।
এবিষয়ে সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মোহাম্মদ মোক্তারুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান সংবাদ পাওয়া মাত্র আমাদের একটি টিম ঘটনাস্থলে যায় এবং অভিযুক্ত রফিকুল ও লাইলী বেগম কে আটক করা হয়েছে। তিনি আরো জানায় যে নিহতের স্ত্রী তাহমিনা বেগম বাদি হয়ে আজ শুক্রবার দুপুরে হত্যা মামলা দায়ের করেন উক্ত মামলায় রফিকুল ও তার স্ত্রী লাইলীকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে তাদের জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে এবং আদালতে তারা ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তি মুলক জবানবন্দিতে তারা হত্যার বিষয়টি স্বীকার করেন