খাগড়াছড়ির গুইমারায় কমিউনিটি পুলিশিং ডে- পালিত


প্রকাশের সময় : অক্টোবর ২৯, ২০২২, ৭:০০ অপরাহ্ন / ৪৫৯
খাগড়াছড়ির গুইমারায় কমিউনিটি পুলিশিং ডে- পালিত

 

এম.জুলফিকার আলী ভূট্টো, বিশেষ প্রতিনিধি-

পার্বত্য জেলা খাগড়াছড়ির গুইমারা উপজেলায় কমিউনিটি পুলিশিং ডে-২০২২ উপলক্ষে র‍্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে ।
২৯ অক্টোবর-২০২২ খ্রি. শনিবার সকালে ১০ টায় গুইমারা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের অডিটোরিয়ামে গুইমারায় কমিউনিটি পুলিশিং ডে-২০২২ র‍্যালী ও আলোচনা সভার বেলুন উড়িয়ে অনুষ্ঠানে শুভ সূচনা করা হয়।
র‍্যালীটি উপজেলার গুইমারা বাজারের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে গুইমারা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের অডিটোরিয়ামে এসে শেষ হয়।
র‍্যালী শেষে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।
উক্ত আলোচনা সভায় “কমিউনিটি পুলিশিং এর মূলমন্ত্র শান্তি-শৃঙ্খলা সর্বত্র” এই প্রতিপাদ্যে পালিত হয়েছে কমিউনিটি পুলিশিং ডে।
পুলিশের সঙ্গে জনগণের সম্পৃক্ততা বৃদ্ধি ও অপরাধ দমনের অন্যতম কৌশল হিসেবে কমিউনিটি পুলিশিং বিশেষ ভূমিকা পালন করে আসছে। প্রতি বছর অক্টোবর মাসের শেষ শনিবার জনগণকে সঙ্গে নিয়ে এ দিবসটি পালন করে থাকে বাংলাদেশ পুলিশ।
উক্ত আলোচনা সভায় এস.আই সুজন কুমার চক্রবর্তী সঞ্চালনায় থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, ওসি মোহাম্মদ আ. রশীদের সভাপতিত্বে উক্ত র‍্যালী ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, সাবেক জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, কংজুরী চৌধুরী, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, গুইমারা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, মেমং মারমা, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, মো. মোতাচ্ছেম বিল্লাহ, উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান, কংজুরী মারমা, ২নং হাফছড়ি ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান, চাইথোয়াই চৌধুরী, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার, ম্রাসাথোয়াই মগ, হাফছড়ি পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক, মো. হাসান খাঁন, ২নং হাফছড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, মংশে চৌধুরী, গুইমারা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক, মো. বাবলু হোসেন, গুইমারা ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসা সুপার, মাওলানা জয়নাল আবেদীন, প্রেসক্লাব সভাপতি, নুরুল আলম, গুইমারা কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের ইমাম, মাওলানা ওসমান গনি, ডাক্টার টিলা কেন্দ্রীয় হরি মন্দিরের পুরোহিত, স্বপন চক্রবর্ত্তীসহ ইউপি সদস্য, থানার পুলিশ সদস্যগণ ও সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলে
সভায় পুলিশের কাজে সহযোগিতা, বাল্য বিয়ে রোধ, ইভটিজিং প্রতিরোধ, জঙ্গিবাদ-সন্ত্রাস দমন, মাদকের কুফল, নারী-শিশু নির্যাতন, যৌতুক নিরোধ, মোবাইলের অপব্যবহার ও সামাজিক মূল্যবোধ বৃদ্ধি সংক্রান্তে আলোচনায় ওঠে আসে।