টানা বৃষ্টিতে গাবতলীর সাহবাসপুর – সুখানপুকুর সড়কের অর্ধেক ধসে যাওয়ায় দূর্ঘটনার আশঙ্কা


প্রকাশের সময় : অক্টোবর ২, ২০২২, ১২:৪৯ অপরাহ্ন / ৪১১
টানা বৃষ্টিতে গাবতলীর সাহবাসপুর – সুখানপুকুর  সড়কের অর্ধেক ধসে যাওয়ায় দূর্ঘটনার আশঙ্কা

 

স্টাফ রিপোর্টার
রাকিব মাহমুদ ডাবলু

বগুড়া গাবতলী উপজেলার নেপালতলী ইউনিয়নের সাহবাসপুর হইতে সুখানপুকুর সড়কের অর্ধেক ধস। এই রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন কয়েক হাজার মানুষের চলাচল করে। কয়েক দিনে আগের টানা বৃষ্টি হওয়াতে নেপালতলী ইউনিয়নের বুরুজ বাজারের পশ্চিম দিকে সুখান পুকুরে এই রাস্তা অর্ধেক ধসে গেছে। এবং তার থেকে একটু এগিয়ে আসলে একটি ছোট ব্রীজ আছে সেই ব্রীজের ঢালায় অনেক দিনে আগে ধসে গিয়ে গর্ত তৈরি হয়েছে। এতে করে যে কোন সময় দুর্ঘটনা ঘটার আশঙ্কা করছেন স্থানীয় ব্যাক্তিরা। জানা গেছে গাবতলীর সাহবাস পুর থেকে সুখানপুকুর বন্দরে গিয়ে রাস্তাটি শেষ হয়েছে এই রাস্তা। বিভিন্ন প্রয়োজনে আসা যাওয়া করে প্রায় ৩০ হাজারের বেশি মানুষ। ছোট বড় অনেক মালবাহী ট্রাকসহ বিভিন্ন যান চলাচল করে। কয়েক দিনের টানা বৃষ্টিতে ধসে গেছে বুরুজ বাজারের এই রাস্তাটি । সরজমিন দেখা যায় এই রাস্তাটি তে বৃষ্টি হলে কদমতলী বাজারের ভিতর হাটু পানিতে পরিনিত হয়। এতে সাধারণ মানুষ সহ গাড়ির চালকের অনেক ভোগান্তি পোহাতে হয়।দিন রাত এই রাস্তা দিয়ে যেভাবে লোকজন চলাচল করে তাতে এই স্থানে যে কোন সময় বড় ধরনের দূর্ঘটনা ঘটতে পারে । এটি এখনই যদি সংস্কার করা না হয় তাহলে আবার বৃষ্টি হলে রাস্তাটির বাকি অংশ ও ধসে যাবে। আরো জানা যায় যে এই ধসের জন্য কোন রোগীকে জরুরি ভাবে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার জন্য দূরের রাস্তা দিয়ে নিয়ে যেতে হয় এতে করে অনেক সময় নষ্ট হয়ে যায়। এবং উত্তরবঙ্গের সবচেয়ে অন্যতম গরুর হাট সৈয়দ আহমেদ কলেজ হাট। বিভিন্ন এলাকার অনেক ব্যবসায়ী হাটের দিন গুলো এই রাস্তা দিয়ে চলাচল করতো এতে তাদের সময় কম লাগতো এবং তাদের গাড়ী ভারা কম খরচ হত। এই ধসের কারণে তাদের অন্য রাস্তা দিয়ে যেতে এয় এতে করে তাদের সময় বেশি লাগে ও গাড়ি ভারা বেশি লাগে। একজন মোটরসাইকেল চলাক বলেন আমি দূর থেকে এই রাস্তাটি ভাঙ্গা দেখে বুঝতে পারিনি যে রাস্তা ভাঙা কপাল ভালো যে একটুর জন্য আমার গাড়িটি বেচেঁ গেল এই বিষয়ে নেপালতলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম বাবু সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন আমি গতরাতে এই রাস্তাটি সরজমিন গিয়ে দেখে এসেছি খুব দূত ভাবে রাস্তা টি সংস্কার করা হবে না হলে যে কোন সময় বড় ধরনের দূর্ঘটনা ঘটতে পারে