নীলফামারীর সুমনার স্বপ্ন পূরণ হতে দিল না ছিনতাইকারী


প্রকাশের সময় : অক্টোবর ৩১, ২০২২, ১০:২৫ অপরাহ্ন / ৫৮১
নীলফামারীর সুমনার স্বপ্ন  পূরণ হতে দিল না ছিনতাইকারী

 

তপন দাস

নীলফামারী প্রতিনিধি

মনের আশা আর পূর্ণ হলো না নীলফামারীর সুমনা আক্তার(২২) এর। অনেক আশা নিয়ে ব্যাংক থেকে টাকা তুলে বাড়ি ফেরার পথে ছিনতাই কারীর খপ্পরে পরে হারাতে হলো মনের আশা পূর্ণ করার জন্য ব্যাংক থেকে তোলা ৪০ হাজার টাকা। আজ সোমবার বিকেল আনুমানিক সাড়ে ৩ টার দিকে নীলফামারীর সদর উপজেলার নটখানা কলোনীর গ্রামীন ব্যাংক নামে একটি এনজিও এর সামনে এই মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটে। ছিনতাই এর শিকার হওয়া সুমনা আক্তার সদর উপজেলার পলাশবাড়ী বালাপাড়া গ্রামের মোহাম্মদ আতিকুল ইসলাম (২৫) এর স্ত্রী , ছিনতাই এর শিকার ভুক্তভোগী সুমনা ও তার স্বামী আতিকুল ইসলাম বলেন আমার স্ত্রী যখন টাকা তুলে ব্যাংক থেকে বাহিরে আসে তখন সেই ছিনতাই কারী ব্যাংকের সামনে দাড়িয়ে ছিল আর ব্যাংক থেকে বাহির হয়ে জরিনার বাজার নামক স্হানে গেলে সেই ব্যক্তি আমার স্ত্রী কে জানায় যে সেখানে টাকা বেশি আছে বলে ম্যানেজার স্যার আমাকে পাঠালো তখন প্রথমে আমার স্ত্রী টাকা না দিয়ে বলেছিলেন আমি ব্যাংকের ভিতরেই টাকা ৪ বার গুনে নিয়েছি তবু ও বেশি আসবে কি করে তখন ছিনতাই কারী বলেন যে ম্যানেজার আমাকে পাঠালো টাকা গুনে দেয়ার জন্য এজন্য আমি আসলাম টাকা টা এখন বাহির করেন আর টাকা বাহির করা মাত্র তারা টাকা নিয়ে পালিয়ে যায় মাথায় হেলমেড পড়া থাকার কারনে আমার স্ত্রী তাদেরকে চিনতে পারে নি।
এবিষয়ে গ্রামীণব্যাংক পলাশবাড়ী ইউনিয়ন শাখার ম্যানেজার মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বলেন আমরা আমাদের প্রতিষ্ঠান থেকে সুমনা আক্তার কে কয়েক বার বলে ছিলাম যে আপনার স্বামী কে ছাড়া আমরা টাকা দিতে পারবো না কার ণ সম্প্রীতি কিছুদিন আগে পলাশবাড়ী শুকান দীঘি থেকে আশা ব্যাংক থেকে এক রিন গ্রোহিতার টাকা ছিনতাই হয়েছিল তখন উনি বলেন যে তার স্বামী ব্যস্ত থাকার কারনে আসতে পারবে না তখন আমরা ওনাকে ৪০ হাজার টাকা গুনে দেই এবং উনিও টাকা ৪ বার গুনে নিয়ে ব্যাংক থেকে বাহির হওয়ার ৫ থেকে ১০ মিনিটের মধ্যে আবার রিটান হয়ে এসে আমাদের কে বিষয়টি জানায় তখনি আমরা ছিনতাই কারী কে খুজতে থাকি।