নীলফামারী কিশোরগঞ্জ উপজেলার মাগুরা ইউনিয়নের স্বাধীন মিয়া পোল্ট্রি ফার্মে স্বাবলম্বী


প্রকাশের সময় : নভেম্বর ৪, ২০২২, ১১:১৪ অপরাহ্ন / ২৫৪
নীলফামারী কিশোরগঞ্জ উপজেলার মাগুরা ইউনিয়নের স্বাধীন মিয়া পোল্ট্রি ফার্মে স্বাবলম্বী

মোঃ সামিউল আলম সায়মন নীলফামারী  প্রতিনিধিঃ

নীলফামারী কিশোরগঞ্জ ,উপজেলায় মাগুরা ইউনিয়নে ,প্রায় দুই বিঘা জমির উপরে পোল্ট্রি ফার্ম গড়ে তোলেন মোহাম্মদ স্বাধীন মিয়া। তিনি ২০১৭ সালে এই পোল্ট্রি ফার্ম গড়ে তোলেন। প্রথমে দুই হাজার পোল্ট্রি মুরগি দিয়ে ফার্ম শুরু করলেও ,বর্তমানে তার পোল্ট্রি ফার্মে প্রায় সাত থেকে সাড়ে সাত হাজার পোল্ট্রি মুরগি রয়েছে। আর এই পোলট্রি মুরগি দৈনিক ৫০০০ থেকে ৬ হাজার ডিম দিয়ে আসছে ।পোল্ট্রি খামারি স্বাধীন মিয়া বলেন, আমি সিঙ্গাপুরে ছয় মাসের মতো থেকেছি, কিন্তু কাজে অনেক কষ্ট থাকার জন্য সিঙ্গাপুর প্রবাসে আমি থাকতে পারিনি। অবশেষে নাড়ির টানে দেশে ফিরে আসি, শুরু হয় আমার জীবনের যুদ্ধ ।অনেক কষ্ট করে এই পোল্ট্রি ফার্মটি আমি দাঁড় করিয়েছি ।আজ আমি স্বাবলম্বী ,কোন প্রকার এন্টিবায়োটিক ঔষধ না দিয়েই সবুজ ডিমের এই পোল্ট্রি ফার্ম। ডিমটিকে সবুজ বলার কারণ এই ডিমে শরীরের কোন ক্ষতি হয় না বরং পুষ্টি অনেক বেশি, কারণ এই পোলট্রি মুরগীদেরকে কোন রকমের এন্টিবায়োটিক ঔষধ দেওয়া হয় না ।স্বাধীন মিয়া আরো বলেন সরকার থেকে কোন অনুদান পেলে পোল্ট্রি খামার আরো বৃদ্ধি করতে পারব। ফলে বেকারত্বদের কিছু কর্মসংস্থান হবে আমার এই খামারে । এ বিষয়ে কথা বলতে গেলে ডঃ মুহাম্মদ নাহিদ সুলতান ভেটেরিনারি সার্জন উপজেলা প্রাণিসম্পদ দপ্তর ও ভেটেরিনারী হাসপাতাল কিশোরগঞ্জ ,নীলফামারী তিনি বলেন

ডিম একটি অত্যন্ত পুষ্টিকর খাদ্য , ডিমে অনেক প্রোটিন আছে, বাংলাদেশে যে প্রোটিনের অভাব আছে সেটি এই সবুজ ডিম দিয়ে পূরণ করা সম্ভব । তিনি আরো বলেন আমরা যে সবুজ ডিমের কথা বলতেছি সেটি আসলে এন্টিবায়োটিক মুক্ত একটি ডিম, সাধারণত যে খামার গুলোতে এন্টিবায়োটিক ব্যবহার হয় না সেগুলো খামারিকে আমরা বলি সবুজ ডিম সবুজ মাংস উৎপাদনকারী খামারি।তিনি আরো বলেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় একটি গবেষণায় উঠে এসেছে এন্টিবায়োটিক ছাড়াও  পোল্ট্রি ফার্ম করা সম্ভব ,এতে খামারির যেমন সাশ্রয় হয় তেমনি  মানব দেহের জন্য কোন পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া হয়না এই ডিম এবং মাংসে।